ঢাকা,  রোববার
০৪ ডিসেম্বর ২০২২

The Daily Messenger

হাছেন আলী ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের সহায়তা পেলেন ফুলবাড়ীর আব্দুল মজিদ পাগলা

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১৭:২৯, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২

হাছেন আলী ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের সহায়তা পেলেন ফুলবাড়ীর আব্দুল মজিদ পাগলা

ছবি: সংগৃহীত

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের মধ্য অনন্তপুর গ্রামের জন্মগতভাবে শারীরিক অক্ষমতা সম্পন্ন আব্দুল মজিদ পাগলাকে একটি হুইলচেয়ার ও নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান করেছে হাছেন আলী ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন। মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২) দুপুরে সহায়তা প্রদান করেন ফাউন্ডেশনের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ হাছেন আলী।

সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টাল সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘আব্দুল মজিদ পাগলার আশা-ভরসা ও শেষ আশ্রয়স্থল বিধবা দুই বোন' শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছিল। প্রতিবেদনে আব্দুল মজিদ পাগলার অসহায়ত্বের ঘটনার বর্ণনা নজরে আসে হাছেন আলী ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের। পরে ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আব্দুল মজিদ পাগলার জন্য একটি হুইলচেয়ার ও নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান করা হয়।

হুইলচেয়ার পেয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে অশ্রু ঝরে আব্দুল মজিদ পাগলার। তিনি কেঁদে কেঁদে বলেন, আমি খুব অসহায়। জন্মগতভাবে শারীরিক অক্ষমতা সম্পন্ন হওয়ায় হাঁটাচলা করতে পারিনা। সবসময় বদ্ধ ঘরে শুয়ে বসে থাকতে হতো। এখন আমি চেয়ারে বসে বাইরে ঘোরাফেরা করতে পারবো। স্ত্রী সন্তান কেউ না থাকায় শেষ বয়সে এসে খুব কষ্টে জীবনযাপন করতেছি। দুই বিধবা বোন ছাড়া আমার কেউই নাই। যারা আমাকে সহায়তা করলো তাদের জন্য আল্লাহর কাছে অনেক অনেক দোয়া করি।

মজিদ পাগলার দুই বিধবা বোন জমিলা বেওয়া ও ছালেহা বেওয়া বলেন, আমাদের তিন ভাইবোনের মিলে পৈত্রিক ভিটে মাটি আট শতক জমি ছাড়া আর কিছু নাই। আমাদের অর্থ সম্পদ নাই ভাইয়েরও কোন কিছু নাই। আমরা দুই বিধবা বোন এই পাগল ভাইকে নিয়ে পৈতৃক ভিটায় কোনরকমে দিন পার করছি। ভাই সব সময় বদ্ধ ঘরে থাকতে চায় না। সবসময় কান্নাকাটি করতো। আমাদেরও বয়স হয়েছে। অসুস্থ ভাইকে ঘর বাহির আনা নেওয়া করতে অনেক কষ্ট করতে হতো। এখন ভাই হুইলচেয়ারে বসে বাইরে ঘোরাফেরা করতে পারবে। চেয়ারটা পেয়ে আমাদের এই প্রতিবন্ধী ভাইটা সহ দুই বিধবা বোনের অনেক কষ্ট লাঘব হলো।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে ফুলবাড়ী উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি উত্তম কুমার মোহন্ত, স্থানীয় সমাজকর্মী এরশাদুল হক চৌধুরী, পল্লী চিকিৎসক জাহাঙ্গীর আলম, কিন্টার গার্ডেন পরিচালক আব্দুল জব্বার, সংগঠক ও গণমাধ্যমকর্মী নুরনবী মিয়া সহ স্থানীয় আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

ডেইলি মেসেঞ্জার/এমএএস

শীর্ষ সংবাদ: