ঢাকা,  মঙ্গলবার
২৫ জুন ২০২৪

The Daily Messenger

দ্বিতীয় ধাপের ১৫৬ উপজেলায় ভোট আজ

মেসেঞ্জার অনলাইন

প্রকাশিত: ০৭:৪৮, ২১ মে ২০২৪

আপডেট: ০৭:৫৪, ২১ মে ২০২৪

দ্বিতীয় ধাপের ১৫৬ উপজেলায় ভোট আজ

ছবি : সংগৃহীত

উদ্বেগ আর সহিংসতার আশঙ্কার মধ্যেই ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদের দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচন মঙ্গলবার (২১ মে)। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ চলবে। এ ধাপে ২৪ উপজেলায় ইভিএমে ভোটগ্রহণ হবে। বাকি উপজেলায় ভোট হবে ব্যালটে। দ্বিতীয় ধাপে ২২জন একক প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। যাদের মধ্যে ৭জন চেয়ারম্যান, ৮ জন ভাইস চেয়ারম্যান ও ৭ জন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রয়েছেন।

এ ধাপেও বিএনপিসহ সমমনা দলগুলো অংশগ্রহণ করছে না। জনগণকে ভোট বর্জনের আহ্বান জানিয়ে বিভিন্ন উপজেলায় গণসংযোগ ও লিফলেট বিতরণ করেছে তারা। এ ছাড়া নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ করতে আওয়ামী লীগ এবার দলীয় প্রতীকে প্রার্থী দেয়নি। যার ফলে ক্ষমতাসীন দলটিরই একাধিক প্রার্থী নির্বাচনে দাঁড়িয়েছেন। এতে দ্বিতীয় ধাপেও ভোটার উপস্থিতি কম হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

দ্বিতীয় ধাপে ১০টি অঞ্চলের ১০৬ পৌরসভার, ১ হাজার ৪৯৪ ইউনিয়নে মোট ভোটকেন্দ্র রয়েছে ১৩ হাজার ১৬টি আর ভোটকক্ষ রয়েছে ৯১ হাজার ৫৮৯টি। গতকাল সোমবার ৬৯৭ কেন্দ্রে ব্যালট পাঠানো হয়েছে। আজ ভোরে যাবে ১২ হাজার ৩২৩ কেন্দ্রে। দ্বিতীয় ধাপে মোট ভোটার রয়েছে ৩ কোটি ৫২ লাখ ৪ হাজার ৭৪৮ জন।

দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনে মোবাইল ও স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে মোট বিজিবি মোতায়েন থাকবে ৪৫৮ প্লাটুন। ভোটকেন্দ্রে মোট পুলিশ সদস্য মোতায়েন থাকবে ৪৭ হাজার ৮২৯ জন, মোবাইল টিমে মোট পুলিশ সদস্য মোতায়েন থাকবে ১৩ হাজার ৪৯০ জন, স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে মোট পুলিশ সদস্য মোতায়েন থাকবে ৫ হাজার ৫৬৭ জন। সর্বমোট পুলিশ সদস্য মোতায়েন থাকবে ৮৯ হাজার ৮৬৩ জন। মোবাইল ও স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে মোট র‌্যাব মোতায়েন থাকবে ২ হাজার ৭৬৮ জন। ভোটকেন্দ্র এবং মোবাইল ও স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে মোট আনসার সদস্য মোতায়ন থাকবে ১ লাখ ৯৩ হাজার ২৮৭ জন। নির্বাচনে স্বাভাবিক এলাকার ভোটকেন্দ্রে পুলিশ, আনসার, ভিডিপি, গ্রাম পুলিশ, চৌকিদার, দফাদারসহ মোট ১৭ জন সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। আর গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে ১৮-১৯ জন সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। বিশেষ এলাকার (পার্বত্য ও দুর্গম এলাকা) সাধারণ কেন্দ্রে ১৯ জন ও গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে ২০-২১ জন সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন।

তফসিল ঘোষণার পরদিন থেকে ভোটগ্রহণের তিন দিন পূর্ব পর্যন্ত আচরণবিধি প্রতিপালন এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও প্রতিরোধে প্রতি উপজেলার জন্য একজন করে ম্যাজিস্ট্রেট এবং ভোটগ্রহণের তিন দিন পূর্ব থেকে ভোটগ্রহণের পরের দিন পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও প্রতিরোধে প্রতি তিনটি ইউনিয়নের জন্য একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা হয়েছে। এ ছাড়াও ১৬ উপজেলায় ২৫ প্লাটুন অতিরিক্ত বিজিবি, ১৭টিম র‌্যাব, অতিরিক্ত কোস্ট গার্ড ২ সেকশন ও ৩৮ জন অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেট মোতায়েন করা হয়েছে।

মেসেঞ্জার/দিশা

Advertisement