ঢাকা,  মঙ্গলবার
০৫ মার্চ ২০২৪

The Daily Messenger

শিরোনাম:

* মানুষের দোরগোড়ায় স্মার্ট ডাক সেবা পৌঁছে দিতে সরকার বদ্ধপরিকর : পলক * কৌশলে কখনো কখনো পিছু হটতে হয় : ফারুক * নাটোরে অ্যাম্বুলেন্সে মিললো গাঁজা ফেনসিডিল * বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর সাথে ভারতের হাইকমিশনারের সৌজন্য সাক্ষাৎ * চট্টগ্রামে সুগার মিলে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ২০ ইউনিট * পাকিস্তানে প্রবল বৃষ্টি ও তুষারপাতে ২৭ জনের মৃত্যু * ধানমন্ডির টুইন পিক টাওয়ারের ১২ রেস্তোরাঁ সিলগালা * অগ্নিকাণ্ডের ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে সাইনবোর্ড টানানোর নির্দেশ হাইকোর্টের * দেশের অর্থনীতি নিয়ে মিথ্যা প্রোপাগান্ডা ছড়ানো হচ্ছে : অর্থমন্ত্রী * মালয়েশিয়ায় ট্রেনের ধাক্কায় নিহত ৩ বাংলাদেশি * আফ্রিকার বুরকিনা ফাসোতে হামলা, নিহত ১৭০ * ইভ্যালির রাসেল-শামীমার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা * ২০৪১ সালের মধ্যে বিজিবি হবে বিশ্বমানের স্মার্ট সীমান্ত বাহিনী : প্রধানমন্ত্রী * বেইলি রোডে আগুন : উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠন হাইকোর্টের

চিপসের প্যাকেটে ফ্রি বেলুন গলায় আটকে শিশুর মৃত্যু

লামা-আলীকদম প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২০:৫২, ২৮ নভেম্বর ২০২৩

আপডেট: ২১:৩৬, ২৮ নভেম্বর ২০২৩

চিপসের প্যাকেটে ফ্রি বেলুন গলায় আটকে শিশুর মৃত্যু

ছবি : মেসেঞ্জার

চিপসের প্যাকেটে থাকা ফ্রি বেলুন ফোলাতে গিয়ে গলায় আটকে মোঃ আরফাত নামে ২ বছরের শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) রাত ৬টায় শিশুটিকে তার স্বজনরা লামা সরকারি হাসপাতালে নিয়ে আসলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মৃত শিশু মোঃ আরফাত (২) লামা উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ড বটতলী গ্রামের মোঃ ইসমাইল ও আছমা বেগমের ছেলে।

লামা হাসপাতালে জরুরি বিভাগে দায়িত্বরত সহকারী মেডিকেল অফিসার ডাঃ রায়হান জান্নাত জানান, হাসপাতালে আনার আগেই শিশুটির মৃত্যু হয়েছে। তারপরেও আমরা ইসিজি করে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছি। শ্বাসনালীতে বেলুন আটকে যাওয়ায় শ্বাসবন্ধ হয়ে শিশুটি মারা যায় বলে ধারনা করা হচ্ছে।

শিশুটির মা আছমা বেগম বলেন, বাড়ির পাশে দোকান আছে। বিকেল ৪টায় দিকে খেলার ছলে শিশুটি দোকানে গেলে তাকে চিপসের প্যাকেট কিনে দিই। চিপসের প্যাকেটে বেলুন ছিল। সেই বেলুন ফোলাতে গেলে গলায় আটকে যায়।

বেলুন আটকে যখন বাচ্চা কষ্ট পাচ্ছিল, তখন অনেক চেষ্টা করে বেলুন বের করতে পারিনাই। পরে পানি খাওয়ানোর চেষ্টা করি। পানি খাওয়ানোর পরে তার শ্বাস আরো বন্ধ হয়ে যায়। লামা হাসপাতালে নিয়ে আসলে ডাক্তার বলেন সে মারা গেছে। বটতলী গ্রামটি লামা সদর থেকে প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।

এদিকে খবর পেয়ে হাসপাতালে উপস্থিত হয় লামা থানা পুলিশ। থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক সাজ্জাদ হোসেন বলেন, শিশুটিকে প্রাথমিকভাবে সুরতহাল করা হয়েছে। বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখছি। তবে ময়নাতদন্ত ছাড়া মরদেহ নিয়ে যেতে শিশুটির বাবা-মা অনুরোধ করেছে। এই বিষয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত দিবে।

গজালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান বাথোয়াইচিং মার্মা বলেন, ময়নাতদন্ত ছাড়া মরদেহ দিতে অনুরোধ করা হয়েছে। সে বিষয়ে পুলিশ সিদ্ধান্ত দিবে।

মেসেঞ্জার/রফিকুল/আপেল

×
Islamic Merchant