ঢাকা,  বৃহস্পতিবার
২৫ এপ্রিল ২০২৪

The Daily Messenger

আশুলিয়ায় গাড়ি বিক্রির কথা বলে ব্যবসায়ীর ২৩ লাখ টাকা আত্মসাৎ

সাভার (ঢাকা) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২১:২৬, ২৪ জানুয়ারি ২০২৪

আশুলিয়ায় গাড়ি বিক্রির কথা বলে ব্যবসায়ীর ২৩ লাখ টাকা আত্মসাৎ

ছবি : মেসেঞ্জার

ঢাকার আশুলিয়ায় গাড়ি বিক্রির কথা বলে এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে একটি প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে। ঘটনায় ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী বাদি হয়ে আশুলিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

বুধবার (২৪ জানুয়ারি) বিকেলে অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করেন আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ভজন চন্দ্র রায়।

প্রতারক চক্রের সদস্যরা হলেন, ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানার উত্তর গাজিরচট এলাকার আবু জাফরের ছেলে মো. আবু হানিফ মনা (৩৮) এবং রাজধানীর রমনা থানার সেগুনবাগিচা ওয়েস্টার্ন টাওয়ার এলাকার মৃত মকবুল হোসেনের ছেলে মো. রাশেদ সারোয়ার (৪৮)

তারা উভয়ে যোগসাজশের মাধ্যমে গাড়ি বিক্রির কথা বলে বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী মো. বেলাল হোসেন বাবলু (৩৫) ঢাকার আশুলিয়ার বাইপাইল হাজেরা সুপার মার্কেটের ডেনসো কার-এসি এন্ড মটর পার্টস গ্যারেজের স্বত্বাধিকারী।

আভযোগ সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীর গ্যারাজে বিভিন্ন সময় প্রতারক চক্রের সদস্য আবু হানিফ মনা নিজ মালিকানাধীন গাড়ি মেরামত করতে আসতো। সেই সুবাদে তাদের মধ্যে একটি সম্পর্ক গড়ে উঠে। পরবর্তীতে ২০২১ সালে মনা তার খালাতো ভাই রাশেদ সারোয়ারের মালিকানাধীন একটি হায়েস গাড়ী সে মিডিয়া হয়ে ভুক্তভোগীর নিকট বিক্রয় করবে বলে জানায়।

কথামতো ভুক্তভোগী ২০২১ সালের ২৯ আগষ্ট ২৩ লাখ ৭০ হাজার টাকা মূল্য পরিশোধ করে গাড়িটি বুঝে নেন এবং সপ্তাহের মধ্যে গাড়ীটি ভুক্তভোগীর নামে রেজিষ্ট্রেশন করে দেয়ার শর্তে তিন টাকার নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে চুক্তিবদ্ধ হন। পরবর্তীতে প্রতারক মনা রাশেদ শর্ত মোতাবেক গাড়িটি রেজিষ্ট্রেশন করে দিতে না পারায় ভুক্তভোগী তাদেরকে তাগিদ দেয়।

কিন্তু প্রতারক মনা রাশেদ ভুক্তভোগীকে গাড়ী রেজিষ্ট্রেশন করে না দিয়ে একই গাড়ী জনৈকা ফারজানা আফরোজের নিকট বিক্রি করে তার নামে রেজিষ্ট্রেশন করে দেয়। বিষয়টি ভুক্তভোগী জানতে পেরে তার প্রদেয় টাকা ফেরত চাইলে মনা নানা তালবাহানা করতে থাকে এবং তার মালিকানাধীন অন্য একটি পুরাতন হায়েস গাড়ী ভুক্তভোগীকে দিবে প্রদেয় টাকার মধ্যে লাখ টাকা ফেরত দিবে বলে স্থানীয় লোকজনের উপস্থিতিতে অঙ্গীকার করে তাদের দেয়া পূর্বের গাড়িটি ফেরত নিয়ে যায়।

পরবর্তীতে প্রতারক মনা রাশেদ ভুক্তভোগীকে অঙ্গীকারকৃত গাড়ি প্রদেয় টাকা বুঝিয়ে না দিয়ে উল্টো ভুক্তভোগীর জান-মালের ক্ষতিসাধনের উদ্দ্যেশ্যে নানা ধরনের হুমকি প্রদান করে।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে প্রতারক চক্রের সদস্য আবু হানিফ মনা মুঠোফোনে জানান, ব্যবসায়ী বাবুল গাড়িটি কেনার জন্য আমাকে রাশেদ সারোয়ারের নিকট নিয়ে যায়। বাবুল সরাসরি রাশেদ সারোয়ারের একাউন্টে টাকা লেনদেন করেছে। ঘটনায় আমার কোন সম্পৃক্ততা নেই এবং রাশেদ সম্পর্কের দিক থেকেও আমার কিছু হয়না। অপরদিকে রাশেদ সারোয়ারের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়।

ব্যাপারে ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী মো. বেলাল হোসেন বাবলু বলেন, প্রতারক মনা তার খালাতো ভাই রাশেদ হায়েস গাড়ি বিক্রির কথা বলে আমার কাছ থেকে ২৩ লাখ ৭০ হাজার টাকা নিয়েছে। তারা আমাকে ছাড়াও বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে গাড়ি বিক্রির কথা বলে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে জানতে পেরেছি। ঘটনায় প্রশাসনের নিকট আমি ন্যায় বিচারক প্রত্যাশা করি।

ব্যাপারে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ভজন চন্দ্র রায় বলেন, ঘটনায় ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মেসেঞ্জার/নোমান/আপেল

dwl
×
Nagad