ঢাকা,  বৃহস্পতিবার
২৫ এপ্রিল ২০২৪

The Daily Messenger

ছাত্রকে গুলি করা সেই ডাক্তার শিক্ষক আটক, পিস্তল জব্দ

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২১:১৫, ৪ মার্চ ২০২৪

ছাত্রকে গুলি করা সেই ডাক্তার শিক্ষক আটক, পিস্তল জব্দ

ছবি : মেসেঞ্জার

সিরাজগঞ্জের শহীদ এম মুনসুর আলী মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীকে গুলি করা সেই শিক্ষক রায়হান শরিফকে আটক করেছে পুলিশ। যে শিক্ষার্থীকে গুলি করেছিলেন তা অবৈধ। কারণে তার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা করা হবে।

আহত আরাফাত আমিন তমাল শহীদ এম. মুনসুর আলী মেডিকেল কলেজের ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থী। বর্তমানে তিনি আশঙ্কামুক্ত রয়েছেন।

অভিযুক্ত ডা. রায়হান শরীফ সিরাজগঞ্জের শহীদ এম মুনসুর আলী মেডিকেল কলেজের কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগের শিক্ষক।

সোমবার ( মার্চ) রাতে সিরাজগঞ্জের পুলিশ সুপার আরিফুর রহমান মন্ডল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সিরাজগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন অর্থ) মোহাম্মদ হান্নান মিয়া বলেন, অভিযুক্ত কলেজ শিক্ষক রায়হান শরীফকে শহীদ মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ থেকে আটক করে সদর থানায় আনা হয়েছে। যেহেতু এতবড় একটা ঘটনা ঘটেছে মামলা তো হবেই।

ভুক্তভোগীরা লিখিত অভিযোগ দিলেই সেটা এজাহার হিসেবে নিয়ে মামলা করা হবে। মামলা হলে সেই অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শহীদ এম মুনসুর আলী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ মো. আমিরুল হোসেন বলেন, ওই শিক্ষার্থীর অপারেশন সম্পন্ন হয়েছে। সে এখন শঙ্কামুক্ত আছে। তবে আহত শিক্ষার্থীর পরিবারের পক্ষ থেকে এখনো আমার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়নি। তবে অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শহীদ এম মুনসুর আলী মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি নাজমুস সাকিব উচ্ছ্বাস বলেন, ওই শিক্ষক অসময়ে ক্লাস নিতে চাইলে শিক্ষার্থীরা তা করতে রাজি ছিল না। আজ তিনি সবাইকে জোর করে শিক্ষার্থীদের ইচ্ছার বাইরে ক্লাসে বসান।

এরপর তার বন্দুকটি বের করে এক ছাত্রীর কানের পাশে নিয়ে তমালের দিকে গুলি করেন। এরপর গুলিটি তমালের পায়ে লাগে। মূলত তিনি অস্ত্রের প্রদর্শন করার জন্যই গুলিটি করেছে।

এই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ক্যাম্পাস প্রাঙ্গণে এর আগেও গুলি করার অভিযোগ আছে। তিনি শিক্ষার্থীদের হলে গিয়েও অস্ত্র প্রদর্শন করেন। শিক্ষার্থীদের নেশা করার প্রলোভন সহ অনেক কথা বলেন।

ছাত্রীদের নিয়ে রাতে কলেজে ঘুরে বেড়াতে বাধ্য করেন। এসব বিষয়ে কতৃপক্ষকে জানানো হলেও তারা কোনও ব্যবস্থা নেননি বলে ছাত্রলীগের এই জানিয়েছেন।

সিরাজগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) আরিফুর রহমান মন্ডল বলেন, ওই শিক্ষককে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে। এছাড়াও তার অস্ত্রটি বৈধ নাকি অবৈধ তা যাচাই করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, সোমবার ( মার্চ) বিকেলে শহীদ এম মনসুর আলী মেডিকেল কলেজে আরাফাত আমিন তমাল নামে এক শিক্ষার্থীকে গুলি করার অভিযোগ ওঠে কলেজের শিক্ষক ডা. রায়হান শরীফের বিরুদ্ধে। ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষকের বিচার চেয়ে বিক্ষোভ করেছে শিক্ষার্থীরা।

মেসেঞ্জার/রাসেল/আপেল

dwl
×
Nagad