ঢাকা,  রোববার
১৪ এপ্রিল ২০২৪

The Daily Messenger

মধ্যযুগে মুসলমানদের শিক্ষাব্যবস্থার স্বরূপ উন্মোচন

সাদিয়া ইসলাম মুমু

প্রকাশিত: ১৮:০১, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

আপডেট: ১৮:০৪, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

মধ্যযুগে মুসলমানদের শিক্ষাব্যবস্থার স্বরূপ উন্মোচন

ছবি : সৌজন্য

'মধ্যযুগের মুসলমানদের শিক্ষাব্যবস্থা' একটি অনুবাদ গ্রন্থ। বিশিষ্ট জার্মান লেখক ড. ডানিয়েল হানেবার্গের লেখা এ গ্রন্থ ১৯৩২ সালে প্রকাশিত হয়। লেখক বইটি, বাংলায় অনুবাদ করেছেন আমানউল্লাহ রাইহান।

ইউরোপীয় জাতিবাদী ধ্যান-ধারণা,ইসলাম বিদ্বেষী মনোভাবের বাইরে গিয়ে জার্মান লেখকের উদারচিত্তে ইসলামি শিক্ষাব্যবস্থার সৌন্দর্য ও বিশিষ্টতা স্বীকারের সুন্দর দৃশ্যায়ন নতুন মাত্রা যোগ করেছে বইটিতে।

মুসলমানদের জ্ঞান-বিজ্ঞানে বিষ্ময়কর অগ্রগতির পিছনে লুকিয়ে থাকা শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে আলোচনা লিপিবদ্ধ হয়েছে এ বইয়ে। লেখক এই প্রবন্ধে মধ্যযুগে মুসলমানদের শিক্ষাব্যবস্থার বৈশিষ্ট্য এবং শিক্ষাসম্পর্কিত ব্যবস্থাপনার দিকে দৃষ্টিপাত করেছেন।

জ্ঞানচর্চায় ইবতেদায়ি মক্তব, মসজিদ, মাদরাসা, কোরআনের সমন্বিত প্রভাবের বিষয়ে আলোচনা রয়েছে বই জুড়ে। শাসকের হস্তক্ষেপ ছাড়া ব্যক্তিক অভিনিবেশ ও প্রচেষ্টার ফলে মুসলমানেরা যে ঈর্ষনীয় সফলতা দেখিয়েছেন সে বিষয়ে বিস্তারিত গল্প তুলে ধরা হয়েছে।

বইটি সম্পর্কে অনুবাদক আমানউল্লাহ রাইহান বলেন, বিষয়বস্তুর গুরুত্ব,ঐতিহাসিকতা, প্রাচীনত্ব, দুষ্প্রাপ্যতা ও বাংলা ভাষায় তার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে ভাষান্তরের কাজে হাত দেন তিনি।

তিনি জানান, ইসলামি শিক্ষাব্যবস্থা-সম্পর্কিত গবেষণাটি থেকে পাঠক-গবেষকগণ কিঞ্চিত উপকৃত হলেও তার এই প্রচেষ্টাকে তিনি সার্থক মনে করবেন।

প্রকাশনা সংস্থা ‘আদর্শ’ থেকে বইটি প্রকাশিত হয়েছে। এর প্রচ্ছদ করেছেন সব্যসাচী মিস্ত্রী। রকমারি কিংবা আদর্শের অনলাইন শপ থেকে অর্ডার করে পাঠকরা বইটি সংগ্রহ করতে পারেন।

মেসেঞ্জার/মুমু

dwl
×
Nagad